গ্রীসের উচিত অভ্যুত্থানের পরিকল্পনাকারী সৈন্যদের অবিলম্বে হস্তান্তর করা: এরদোগান

503

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: তুর্কি প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যেপ এরদোগান গ্রীক প্রধানমন্ত্রী অ্যালেক্সিস সিম্পসকে উদ্দেশ্য করে বলেছেন, গত বছরের ১৫ জুলাই তুরস্কের কিছু বিপথগামী সেনা সদস্যদের আকস্মিক অভ্যুত্থানের চেষ্টা কোনোভাবেই বরদাশত করার নয়। ফলে গ্রীসের উচিত ওখানে পালিয়ে যাওয়া সেনাদের অবিলম্বে তুরস্কের কাছে হস্তান্তর করা।

সম্প্রতি চীনের বেইজিংয়ে বেল্ট এবং রোড ফোরামে সিম্পসের সাথে তার বৈঠকের সময় এরদোগান এ মন্তব্য করেন।

তুর্কি প্রেসিডেন্ট গ্রীক প্রধানমন্ত্রীকে আরো বলেন, আকস্মিক অভ্যুত্থানের চেষ্টা ছিল উভয় দেশের জন্য সমস্যা এবং তুর্কী ওই সৈন্যদের বর্তমানে গ্রিসে অবস্থান করতে দেয়া বড় ভুল। তিনি প্রধানমন্ত্রীকে এই সমস্যা সমাধানে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণেরও আহ্বান জানান।

প্রসঙ্গত, ৪ মে গ্রিসের একটি আদালত দুই সাবেক তুর্কি সৈন্যদের হস্তান্তর প্রত্যাখ্যান করে এবং একইভাবে অন্য ছয়জনের হস্তান্তরের প্রক্রিয়াও বাতিল করে রায় দিয়েছে।

তুর্কি ওই সাবেক সৈন্যরা অভ্যুত্থানে জড়িত থাকার অভিযোগে অভিযুক্ত হয়, যা তুরস্ক দাবি করে তারা ফেতুল্লার সন্ত্রাসবাদী সংগঠন (এফইটিও) এর সাথে জড়িত এবং এই সংগঠনের নেতা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থানরত ফেতুল্লাহ গুলেন।

এর আগে তুর্কি সরকার অভ্যুত্থানের পরিকল্পনাকারীদের হস্তান্তর করার জন্য বারবার অনুরোধ জানিয়েছে গ্রিসকে এবং তারা প্রতিশ্রুতি দেয় যে, তারা তুরস্কে সুষ্ঠু বিচারের সম্মুখীন হবে। এছাড়াও, এরদোগান এবং সিম্পসের বৈঠকে সম্মত হন যে, সাইপ্রাস সমস্যা সমাধানের জন্য ইতিবাচক আলোচনা চালিয়ে যাবেন তারা।

বেল্ট এবং রোড ফোরামে অংশগ্রহণের জন্য এরদোগান চীনে যান, যেটি আনুষ্ঠানিকভাবে রবিবার রাজধানী বেইজিংতে শুরু হয়। বেল্ট এবং রোড ২০১৩ সালে চীনা প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং দ্বারা প্রস্তাবিত হয়। চীনের সরকারি সংবাদ মাধ্যমের মতে, প্রাচীন বাণিজ্য রুটগুলি যেমন সিল্করোড যা এশিয়া ইউরোপ, আফ্রিকা সংযুক্ত হবে এমন একটি বাণিজ্য ও অবকাঠামো নেটওয়ার্ক গড়ে তোলার লক্ষ্যে কাজ করে যাবে তারা।

এছাড়াও এরদোগান শনিবার ফোরামের ফাঁকে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরীফের সাথে দেখা করেন। উভয় নেতা তুরস্ক এবং পাকিস্তান মধ্যে একটি ব্যাপক মুক্ত বাণিজ্য চুক্তি স্বাক্ষরের জন্য তাদের প্রচেষ্টা দ্রুততর করতে সম্মত হন। তুর্কি প্রেসিডেন্ট হাঙ্গেরীয় প্রধানমন্ত্রী ভিক্টর অর্বান সাথে দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য ঘাটতির বিকল্প অনুসন্ধান করেছেন। তিনি জাতিসংঘের মহাসচিব এন্টোনিও গিটার্সের সঙ্গে এক ঘণ্টা বৈঠক করেন।

আনাদোলু নিউজ এজেন্সি অবলম্বনে