রুশনারা আপসানার বিভাজনের রাজনীতি: দেখা হলেও কথা হয়নি

1490

ওয়ানবাংলানিউজ: ব্রিটেনে ৪ বাংলাদেশী বংশোদ্ভুত নারী এমপি নির্বাচিত হওয়ায় গর্বের শেষ নেই বাংলাদেশী কমিউনিটিতে। শুক্রবার ভোররাত থেকে ব্রিটেন, বাংলাদেশসহ বিশ্বের কয়েক শতাদিক বাংলা মিডিয়ায় খবর প্রকাশিত হয়েছে এই ৪ গর্বিত নারীর। লাখ লাখ বাংলাদেশী স্যোশাল মিডিয়ায় অভিনন্দন জানাচ্ছেন তাদের।

বৃহস্পতিবারের নির্বাচনে বিজয়ী নারীর সবাই লেবার পার্টির এমপি। তাদের মধ্যে দুইজন বাংলাদেশী অধ্যুষিত টাওয়ার হ্যামলেটস বারার বেথনালগ্রীন এন্ড বো এবং পপলার এন্ড লাইম হাউজ আসন থেকে নির্বাচিত হয়েছেন।
এবার নিয়ে চতুর্থবারের মত বেথনালগ্রীন এন্ড বো আসন থেকে এমপি নির্বাচিত হয়েছেন রুশনারা আলী। অন্যদিকে পপলার এন্ড লাইম হাউজ আসন থেকে প্রথম বারের মত এমপি নির্বাচিত হয়েছে আপসানা বেগম।

বৃহস্পতিবার রাত ১০টায় শেষ হয় ব্রিটেনের ভোট গ্রহন পর্ব। এরপরই শুরু হয় ভোট গণনা ও ফলাফল ঘোষণার পর্ব। পূর্ব লন্ডনের এক্সএল সেন্টারে অনুষ্ঠিত হয় উক্ত দুইটি আসনের ভোট গননা ও ফলাফল ঘোষণা। রাত ১টার পর উভয় প্রার্থীকে দেখা ভোট গননা কেন্দ্রে।

প্রথমে আসেন রুশনারা আলী, এর কিছুক্ষন পরে আসেন আফসানা বেগম। উভয় প্রার্থী নিজেস্ব বলয়ের নেতাকর্মীদের সাথে নিয়ে ঘুরতে এবং কথা বলতে দেখা যায়।
রুশনারা আলীর সাথে টাওয়ার হ্যামলেটস কাউন্সিলের মেয়র জন বিগসসহ অধিকাংশ কাউন্সিলার সিনিয়র নেতাদের দেখা যায়। অন্যদিকে আফসানার সাথে দলের কয়েকজন কাউন্সিলারসহ স্বল্প সংখ্যক লেবার নেতাদের দেখা যায়। এসময় একই দলের প্রার্থী হওয়ার স্বত্ত্বেও তাদের মধ্যে কোন ধরনের কর্থাবার্তা, শুভেচ্ছা বিনিময় করতে দেখা যায়নি। এমনকি নির্বাচনের ফলাফল ঘোষণার পর নিজেদের বক্তব্যেও কেউ কাউকে শুভেচ্ছাও জানাননি।

বক্তব্য পর্ব শেষে উভয় প্রার্থী নিজ নিজ গ্রুপের নেতাদের নিয়ে হল থেকে বের হয়ে যান।
তাদের এধরনের আচরনে উপস্থিত অনেকেই হতবাক হয়েছেন। তারা বলছেন দলীয় গ্রুপিং থাকতে পারে তাই বলে একজন অন্যজনকে সৌজন্যতাবোধ দেখাবেননা এটা হতে পারে না। তারা এটি টাওয়ার হ্যামলেটস বারার লেবার রাজনীতির অশুভ লক্ষন হিসেবেই দেখছেন।

কেন তাদের মধ্যে এই বিভাজন বা গ্রুপিংয়ের সৃস্টি এ সংক্রান্ত বিস্তারিক রিপোর্ট আরো আসছে—