নুসরাত হত্যা: সিরাজ-উদ-দৌলাসহ চার আসামির আপিল

42

ঢাকা সংবাদদাতা: ফেনীর মাদ্রাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফি হত্যার ঘটনায় মৃত্যুদণ্ডাদেশপ্রাপ্ত ১৬ আসামির মধ্যে চারজনের পক্ষে হাইকোর্টে আপিল করা হয়েছে।

আপিল করা আসামিরা হলেন- মাদ্রাসার অধ্যক্ষ এস এম সিরাজ-উদ-দৌলা, নুর উদ্দিন, উম্মে সুলতানা পপি ও জাবেদ হোসেন।

সোমবার হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় এ আবেদন করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন আইনজীবী জামিউল হক ফয়সাল।

এর আগে গত ২৯ অক্টোবর আসামিদের মৃত্যুদণ্ডাদেশ অনুমোদনের জন্য (ডেথ রেফারেন্স) মামলার যাবতীয় কার্যক্রম হাইকোর্টে পৌঁছে।

ফৌজদারি কার্যবিধি অনুসারে বিচারিক আদালতে মৃত্যুদণ্ড‍াদেশ হলে মৃত্যুদণ্ডাদেশ অনুমোদনের জন্য মামলার যাবতীয় কার্যক্রম উচ্চ আদালতে পাঠাতে হয়। এ ছাড়া আইন অনুসারে আসামিরা আপিলও করতে পারেন।

মামলার সব নথি পরীক্ষার পর পেপারবুক (মামলার বৃত্তান্ত) তৈরি করতে হয়। এরপর ডেথ রেফারেন্স ও আপিল শুনানি শুরু হয়। তবে, কোনো কোনো মামলার ক্ষেত্রে প্রধান বিচারপতির নির্দেশে অগ্রাধিকারভিত্তিতে পেপারবুক তৈরি করা হয়।

গত ২৪ অক্টোবর রাফি হত্যা মামলায় ১৬ আসামির মৃত্যুদণ্ড ও এক লাখ টাকা অর্থদণ্ডের রায় দেন ফেনীর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মো. মামুনুর রশিদ।

এরা হলেন- সোনাগাজী ইসলামিয়া সিনিয়র ফাজিল মাদ্রাসার সাবেক অধ্যক্ষ সিরাজ-উদ-দৌলা, নূর উদ্দিন, শাহাদাত হোসেন শামীম, সোনাগাজী পৌরসভার কাউন্সিলর মাকসুদ আলম, সাইফুর রহমান মোহাম্মদ জোবায়ের, জাবেদ হোসেন ওরফে সাখাওয়াত হোসেন জাবেদ, হাফেজ আব্দুল কাদের, আবছার উদ্দিন, কামরুন নাহার মনি, উম্মে সুলতানা ওরফে পপি ওরফে তুহিন ওরফে শম্পা ওরফে চম্পা, আব্দুর রহিম শরীফ, ইফতেখার উদ্দিন রানা, ইমরান হোসেন ওরফে মামুন, মোহাম্মদ শামীম, মাদ্রাসার গভর্নিংবডির সহ-সভাপতি রুহুল আমীন ও মহিউদ্দিন শাকিল।