যুক্তরাজ্যের বিনিয়োগকারীদের জন্য পাউন্ড বন্ড ছাড়বে বাংলাদেশ সরকার: লন্ডনে অর্থমন্ত্রী

257

ওয়ানবাংলানিউজ: ওয়ানবাংলানিউজ: বাংলাদেশের অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল বাংলাদেশ হাই কমিশন আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে বলেন, ব্রিটিশ ও বাংলাদেশি-ব্রিটিশ বিনিয়োগকারীরা বাংলাদেশে যাতে সহজে বিনিয়োগ করতে পারেন সে জন্য “বাংলাবন্ড”-এর মত “পাউন্ড বন্ড” ছাড়ার চিন্তা-ভাবনা করছে বাংলাদেশ সরকার।

গতকাল লন্ডনস্থ বাংলাদেশ হাই কমিশনের উদ্যোগে ‘‘বাংলাদেশে বিনিয়োগ‘‘ শীর্ষক এক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন। লন্ডন স্টক একচেঞ্জে বাংলাদেশি টাকায় প্রথম বাংলাবন্ড তালিকাভূক্তির ঐতিহাসিক ঘটনাকে উদ্যাপনের জন্য যুক্তরাজ্যে নিযুক্ত বাংলাদেশের হাই কমিশনার সাইদা মুনা তাসনীমের বিশেষ উদ্যোগে বাংলাদেশ হাই কমিশন এই সেমিনারের আয়োজন করে।

প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ উপদেষ্টা সালমান এফ রহমানের সভাপতিত্বে এই অনুষ্ঠানে ’গেস্ট অব অনার’ হিসেবে উপস্থিত ছিলেন যুক্তরাজ্যের কমনওয়েলথ, জাতিসংঘ ও দক্ষিণ এশিয়া বিষয়ক মন্ত্রী লর্ড তারিক আহমেদ। সেমিনারে বিডার এক্সিকিউটিভ চেয়ারম্যান মোঃ সিরাজুল ইসলাম, অর্থনৈতিক স¤পর্ক বিভাগের সচিব মনোয়ার আহমেদ ও আন্তর্জাতিক মূদ্রা তহবিলের (International Finance Corporation -IFC) বাংলাদেশ, নেপাল ও ভূটানের কান্ট্রি ম্যানেজার ওয়েন্ডি ওয়ের্নারসহ (Wendy Werner) শতাধিক ব্রিটিশ ও বাংলাদেশি-ব্রিটিশ উদ্যোগক্তা অংশ নেন।

অনুষ্ঠানে অর্থমন্ত্রী বলেন, লন্ডন স্টক এক্সচেঞ্জে বাংলাবন্ড ইস্যুর মাধ্যমে বাংলাদেশ আন্তর্জাতিক পুজি বাজারে পদার্পণ করলো। এই বন্ডটি ইতিমধ্যেই যথেষ্ট সাড়া পেয়েছে। তাই আমরা পদক্ষেপ নিয়েছি যাতে শীঘ্রই এই বন্ডের আকার ১০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার থেকে ৩০০ মিলিয়ন মার্কিন ডলারে বাড়ানো যায়। এ ব্যাপারে আইএফসিকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার পরামর্শ দেয়া হয়েছে।

লর্ড আহমেদ লন্ডন স্টক এক্সচেঞ্জে বাংলাবন্ডের তালিকাভূক্তিকে একটি উল্লেখযোগ্য ঘটনা হিসাবে উল্লেখ করেন। তিনি বলেন, এর মাধ্যমে বাংলাদেশ শুধু যে বিশ্ববাজার থেকে বিনিয়োগ পাবে তা নয়। এর মাধ্যমে বাংলাদেশের অর্থনীতি সম্পর্কে আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে ইতিবাচক ধারনা আরো সুদৃঢ় হবে। বাংলাদেশ ও যুক্তরাজ্যের সূদীর্ঘ সম্পর্কের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, লন্ডন স্টক এক্সচেঞ্জে বাংলাদেশের প্রথম বন্ডের তালিকাভূক্তি দুই দেশের ঘনিষ্ট সম্পর্কেরই একটি প্রতিফলন।

সালমান এফ রহমান বলেন, বাংলা বন্ডের মাধ্যমে বাংলাদেশ সরকার বিদেশি বিনিয়োগকারীদের বাংলাদেশে বিনিয়োগ সহজ করে দিয়েছে। ভবিষ্যতে এ ধরনের বন্ডসহ ‘‘সবরেন বন্ড” (Sovereign Bond) ইস্যুর মাধ্যমে বিদেশিদের বাংলাদেশে বিনিয়োগের আরো সুযোগ তৈরি করা হবে।

হাই কমিশনার সাইদু মুনা তাসনীম আশা করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নামকরণকৃত “বাংলাবন্ড”-এর আকার খুব শীঘ্রই আরো কয়েকগুণ বাড়বে। তিনি বলেন, লন্ডনস্থ বাংলাদেশ হাই কমিশন যুক্তরাজ্য থেকে বাংলাদেশে বিনিয়োগ প্রতি বছর ৫ থেকে ৭ শতাংশ বাড়ানোর জন্য বিভিন্ন কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে। এক্ষেত্রে যুক্তরাজ্যের বিভিন্ন চেম্বার, ব্যবসায়ী সংগঠন এবং প্রধান প্রধান ব্রিটিশ ও বাংলাদেশি-ব্রিটিশ বিনিয়োগকারীদের সঙ্গে নিয়মিত আলোচনা ও মত বিনিময় হচ্ছে। তিনি আশা করেন যুক্তরাজ্য থেকে বাংলাদেশের প্রধান প্রধান খাতগুলোতে বিনিয়োগ আগের তুলনায় আগামী দিনগুলোতে আরো বাড়বে।

TV ONE NEWS: LAUNCHING OF 'BANGLABOND'

TV ONE NEWS: LAUNCHING OF 'BANGLABOND'

Posted by TV One News on Tuesday, 12 November 2019