কমিউনিটি ব্যক্তিত্ব বীর মুক্তিযোদ্ধা রনজিত চক্রবতী আর নেই

180

শেফিলড থেকে আহমদ হোসেন হেলাল : ইংল্যান্ডের শেফিলডের শহরের জনপ্রিয় ব্যক্তিত্ব বীর মুক্তিযোদ্ধা রনজিত কুমার চক্রবতী আর আমাদের মাঝে নেই । গত ১লা নভেম্বর স্থানীয় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবসতায় মৃত্যুবরন করেন । রেখে গেছেন অনেক সৃতি । তিনি ছোট বড় সবাইর কাছে দাদা পজিটিভ মানুষ হিসাবে পরিচিত ছিলেন । তিনি কাউন্সিলের উর্ধতন কর্মকর্তা হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। ব্যবসা সহ নিজের কাজের পাশপাশি কমিউনিটির সেবায় নিয়োজিত থাকতেন। বিশেষ কারনে গভীর রাতে কেউ ফোন করলেও তাকে হাসি মুখে পাওয়া যেতো।

উল্লেখ্য রনজিত চক্রবতী ফরিদপুরের গোপালগঞ্জের কৃশন নগর গ্রামে ১৯৫১ সালে জনম গ্রহন করেন। তিনি ১৯৬৭ সালে গোপালগঞ্জ এস,এম মডেল হাইসকুল এস,এস,সি ও ফরিদপুরের রাজেনদ্র কলেজ হতে মেধার সাথে ডিসটিংশন নিয়ে এইচ, এস, সি পাশ করেন। তিনি একসময় গান ,নাটক, যাত্রা সহ সাংস্কৃতিক সব ধারায় প্রতিভার সাথে অবাধ বিচরণ ছিলো । অসাধারণ ফলাফল নিয়ে প্রাচ্যের অকসফোড ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পদাথ বিজ্ঞান বিভাগে ভতি হন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র থাকাকালীন সময়ে সরাসরি মুক্তিযোদ্ধে অংশ নিয়েছিলেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বি, এস,সি অনাস ও মাসটারস সমপনন করেন । অসাধারণ ফলাফলের জন্য যুক্তরাজ্যের কমনওয়েলত বৃত্তি লাভ করেন । ১৯৭৬ সালে যুক্তরাজ্যে পড়াশুনার জন্য আসেন। প্রথমে কয়েকটি বিশ্ববিদ্যালয়ে গেলেও পরে শেফিলড শহরের বিশ্ববিদ্যালয় বেচে নিলেন ও শেফিলড শহরের মানুষকে ভালবেসে ফেললেন ।

বলাবাহুল্য ১৯৮২ সালে বৃটিশ সরকার তাকে ডেপুটেশন জন্য আদেশ জারি করলো । শেফিলড বাংলাদেশীরা অনশন ও ডেমোসট্রেশন মধ্যে দিয়ে মানুষের ভালবাসার কাছে রনজিত চক্রবতীর ডেপুটেশন আদেশ বন্ধ হলো । তিনি মানুষের ভালবাসায় সিক্ত হলেন । মানুষের সেবা , সংসকৃতি ও কমিউনিটির বিভিন্ন শাখায় সহযোগিতা অব্যাহত রাখলেন । একসময় স্বাধীনতার পটভুমিতে
রক্তাক্ত ৭১ ;নামে একটি নাটক তার নিদর্শনায় মঞ্চায়ন হয় এবং তা সবাইর কাছে প্রশংসীত হয়েছিলো । ৬৯ বছর বয়েসী রনজিত চক্রবতী শেফিলডের সব মানুষের কাছে সদলাপী , সাদামনের মানুষ হিসেবে প্রিয়জন ছিলেন । জীবনের শেষ মুহুতেই কমিউনিটির উন্নয়নে কাজ করে গেছেন । ব্যক্তিগত জীবনে স্ত্রী ছেলে মেয়ে ভাই আতীয় সজন ও অসংখ্য গুনগ্রাহী রেখে গেছেন । পরিবারের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে , তার মরদেহ বাংলাদেশে নেওয়া হবে। ফরিদপুরের গোপালগঞ্জে তার জনমভূমিতে সনাতন রীতি অনুযায়ী শেষ কৃত্য অনুসটান সমপনন হবে। শেফিলড কমিউনিটির সবাই তার পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন এবং তার আততার শান্তি কামনা করেন ।