মার্কিন মিশনে যোগ দেয়ার ঘোষণার পর ইরানে ৩ অস্ট্রেলীয় আটক

40

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: হরমুজ প্রণালীতে মার্কিন নেতৃত্বাধীন মিশনে অস্ট্রেলিয়ার যোগ দেয়ার ঘোষণার পর ইরানে দেশটির তিন নাগরিককে আটক করা হয়েছে। বুধবার এমন দাবি করেছে অস্ট্রেলিয়ার সরকার। ইরানি কর্তৃপক্ষের হাতে পশ্চিমা নাগরিকদের আটকের সর্বশেষ খবর এটি।

বার্তা সংস্থা এএফপিকে অস্ট্রেলীয় সরকারের এক মুখপাত্র বলেন, ইরানে আটক তিন অস্ট্রেলীয় নাগরিকের পরিবারকে কনসুলার সহায়তা দিয়েছে পররাষ্ট্র এবং বাণিজ্যবিষয়ক মন্ত্রণালয়।

গোপনীয়তা রক্ষার বাধ্যবাধকতা থাকায় এ নিয়ে বিস্তারিত কথা বলতে অস্বীকার করেন তিনি।

এর আগে টাইমস অব লন্ডনের খবরে বলা হয়েছে, তেহরানের এভিন কারাগারে দুই ব্রিটিশ-অস্ট্রেলীয় নারীকে আটক রাখা হয়েছে। তাদের মধ্যে এক নারীর ছেলেবন্ধুও গ্রেফতার হয়েছেন।

এই দুই নারীর বিরুদ্ধে কোনো অভিযোগ করা হয়েছে কিনা, তা পরিষ্কার হওয়া সম্ভব হয়নি। তবে এক নারী গত এক বছর ধরে ইরানি কারাগারে রয়েছেন বলে খবরে বলা হয়েছে।

হরমুজ প্রণালিতে জাহাজ চলাচল নিরাপদ রাখতে মার্কিন নেতৃত্বাধীন মিশনে অস্ট্রেলিয়ার যোগ দেয়ার ঘোষণার পর এই তিন নাগরিকের আটকের খবর এসেছে।

গত আগস্টে অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন বিতর্কিত মার্কিন মিশনে মাঝারি ধরনের অবদান রাখার ঘোষণা দেন। যাতে একটি যুদ্ধজাহাজ ও পি৮ নৌ নজরদারি বিমান এবং প্রয়োজনীয়সংখ্যক কর্মীকে অন্তর্ভুক্ত করার কথা বলেন তিনি। এই মিশনে ব্রিটেনও রয়েছে।

চলতি সপ্তাহের শুরুতে ইরান সফরের ক্ষেত্রে নাগরিকদের প্রয়োজনীয়তা পুনর্বিবেচনা করে ভ্রমণ নির্দেশনা হালনাগাদ করে অস্ট্রেলীয় সরকার। এ ছাড়া ইরাক ও আফগানিস্তান সীমান্তে না যেতে পরামর্শ দেয়া হয়।

তবে ইরানে দ্বৈত নাগরিকদের আটক সংখ্যা বাড়তে থাকার ঘটনাকে আবেগঘন কূটনৈতিক কৌশল হিসেবে আখ্যায়িত করছেন পশ্চিমা বিশ্লেষকরা।