জশ হ্যাজলেউড ধাক্কা দিলেন ইংল্যান্ডকে

33

খেলাধুলা ডেস্ক: অ্যাশেজে দ্বিতীয় টেস্টে দলে এসেই অস্ট্রেলিয়ার পেস বোলার জশ হ্যাজলেউড ধাক্কা দিলেন ইংল্যান্ডকে। তাঁর দাপটে শুরুতেই ইংল্যান্ড ২৬-২ হয়ে গিয়েছিল। জ্যাসন রয় (০) এবং অধিনায়ক জো রুটকে (১৪) ফিরিয়ে দেন তিনি। সেখান থেকে ররি বার্নসের ৫৩ রানের সাহায্যে বিপদ এড়ায় ইংল্যান্ড। মধ্যাহ্নভোজের বিরতির সময় ইংল্যান্ডের রান ছিল ৭৬-২। হ্যাজলেউড পরে জো ডেনলিকেও (৩০) ফিরিয়ে দেন। অস্ট্রেলিয়ার প্রথম টেস্টের দলে একটাই পরিবর্তন হয়েছে। জেমস প্যাটনসনের বদলে দলে এসেছেন হ্যাজলেউড।

প্রথম টেস্টে ২৫১ রানে জয় পেয়েছিল অস্ট্রেলিয়া। দ্বিতীয় টেস্টের প্রথম দিন বৃষ্টিতে নষ্ট হয়েছিল। বৃহস্পতিবার ম্যাচের দ্বিতীয় দিন খেলা গড়ায় মাঠে। টস হেরে ব্যাট করতে নামে ইংল্যান্ড। ইংল্যান্ডের প্রথম ইনিংস শেষ হয়ে যায় ২৫৮ রানে। ইংলিশ ওপেনার ররি বার্নস দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৫৩ রান করেন। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৫২ রান করেন জনি বেয়ারস্টো। অস্ট্রেলিয়ার বোলারদের মধ্যে তিন পেসার মিলে ৭টি উইকেট নেন। প্যাট কামিন্স ৩টি, জস হ্যাজলেউড ৩টি ও পিটার সিডল ১টি করে উইকেট নেন। আর স্পিনার নাথান লায়ন শিকার করেন ৩টি উইকেট।

ওপেনিংয়ে ররি বার্নস ছাড়া মিডল অর্ডারে জনি বেয়ারস্টোর মরিয়া লড়াই ইংল্যান্ডকে আড়াইশো পার করিয়ে দেয়। বেয়ারস্টো শেষে ফিরে যান ৫২ রানে। পাশাপাশি ক্রিস ওকস ৩২ রান করে যোগ্য সঙ্গ দেন। প্রথম দিন নষ্ট হওয়ায় ৯৮ ওভার করে ম্যাচ হবে প্রতিদিন। ইংল্যান্ডে শেষবার অস্ট্রেলিয়া অ্যাশেজ জিতেছে ১৮ বছর আগে।

এদিন আবার বল করতে আসেন অস্ট্রেলিয়ার তারকা স্টিভ স্মিথও। প্রথম অ্যাশেজ টেস্টে জোড়া সেঞ্চুরি করার পরে তিনি বল করতে যখন নামেন একই রকম ব্যঙ্গ-বিদ্রুপ তাঁকে উদ্দেশ্য করে আছড়ে পড়ছিল।

বৃহস্পতিবার ইংল্যান্ডের ইনিংস শেষ হওয়ার পর অস্ট্রেলিয়া ব্যাট করতে নামে। দ্বিতীয় দিন শেষে অস্ট্রেলিয়ার সংগ্রহ এক উইকেটে ৩০ রান। অর্থাৎ, ২২৮ রানে পিছিয়ে রয়েছে তারা।