বিশ্বনাথ প্রবাসী এডুকেশন ট্রাস্টের ভুল বুঝাবুঝির অবসান

564

ওয়ানবাংলানিউজ: বিশ্বনাথ প্রবাসী এডুকেশন ট্রাস্টের সাম্প্রতিক ভুল বুঝাবুঝির অবসান হয়েছে। ফলে আবারো ট্রাস্টের স্বাভাবিক কার্যক্রম শুরু হয়েছে। বেশ কিছুদিন যাবত ট্রাস্টের কার্যকরি কমিটির মধ্যে মতবেদ, কিছু কিছু বিষয় নিয়ে ট্রাস্টিদের মতানৈক্যের সৃস্টি হলে ট্রাস্টের কার্যক্রমর প্রায় বন্ধ হয়ে যায়। এরই পরিপ্রেক্ষিতে ট্রাস্টের প্রতিষ্ঠাতা ট্রাস্টি ও সিনিয়র ট্রাস্টিদের উদ্যোগে গত ৮ জুলাই পূর্ব লন্ডনের ব্রিকলেইন জামে মসজিদের সেমিনার হলে এক সমঝোতা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে দীর্ঘ আলাপ আলোচনার পর সকল পক্ষ ট্রাস্টের স্বার্থে সকল প্রকার ভেদাভেদ ভুলে আবারো এক হয়ে ট্রাস্টের উন্নয়নে কাজ করার অঙ্গীকার করেন।

ট্রাস্টের সাবেক সভাপতি ও বিশ্বনাথ বালাগঞ্জ ওসমানীনগর এলাকার সাবেক সংসদ সদস্য সফিকুর রহমান চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় সমঝোতায় মূখ্য ভূমিকা পালন করেন সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মুহিবুর রহমান ও প্রবীন ট্রাস্টি আলহাজ্ব পংকি খান । পর্যবেক্ষক হিসেবে উপস্থিত বাংলাদেশ ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশনের সাধারন সম্পাদক নুরুল ইসলাম, বাংলাগঞ্জ এডুকেশন ট্রাস্টের সভাপতি রবিন পাল।

এসময় উপস্থিত ছিলেন ট্রাস্টের সাবেক সভাপতি শাহ আজিজুর রহমান, এ কে এম সেলিম, মির্জা আসহাব বেগ, সাবেক সাধারণ সম্পাদক লোকমান হোসেন, নজরুল ইসলাম, সাবেক ট্রেজারার আব্দুল মুজিদ, আসাদুর রহমান, সিনিয়র ট্রাস্টি আবুল কালাম আজাদ, আলহাজ্ব সুনু মিয়া, আলহাজ্ব খলিল উদ্দিন, আলহাজ্ব হাসন আলী, প্রফেসর নূরুল ইসলাম, একেএম ইয়াহইয়া, আফসর মিয়া ছোট, আব্দুল কদ্দুস, সামছুদ্দিন সামস, গোলজার খান, প্রফেসর মানিক মিয়া।

বর্তমান কমিটির সভাপতি মতছির খান, সাধারন সম্পাদক মিসবাহ উদ্দিন, সহ সভাপতি শেখ তাহির উল্লাহ, সাজ্জাদুর রহমান, ট্রেজারার আজম খান, সহ সাধারণ সম্পাদক আখলাকুর রহমান, মজনু মিয়া, সহ ট্রেজারার আব্দুল ওদুদ শাহেল, প্রচার সম্পাদক মানিক মিয়া, সদস্য বাবুল হোসেন বাবুল, কবির মিয়া, ফারুক মিয়া, আব্দুস সাত্তার, শাহ জয়নাল আহমদ।

ট্রাস্টিদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সামসাদুর রহমান রাহিন, মনির আহমদ, আকলুছ মিয়া, মদরিছ আলী মফজ্জুল, আব্দুর রহিম রঞ্জু,

সমঝোতা সভায় সেসকল বিষয়ে সিদ্ধান্ত হয় তার মধ্যে উল্লেখ্যযোগ্য হচ্ছে, বিগত কমিটির সময়ে বাংলাদেশে ট্রাস্টের নামে যে রেজিস্ট্রেশন হয়েছিল তা বাতিল করার জন্য ব্যবস্থা গ্রহন করা। আর এর দায়িত্ব নেন সাবেক এমপি সফিকুর রহমান চৌধুরী। রেজিস্ট্রেশনের সাথে জড়িত সংশ্লিস্ট ট্রাস্টিদের সার্বিক সহযোগিতার প্রতিশ্রুতি নেয়া হয়।
রেজিস্ট্রেশন কালিন সময়ে আনুমানিক যে ১০ লাখ টাকা খরছ হয়েছিল তা ট্রাস্টের স্বার্থে খরছ হয়েছে বিদায় সংশ্লিষ্টদের এ ব্যাপারে আর কোন প্রশ্নের সম্মুখিন না করার সিদ্ধান্ত হয়। এছাড়া সাবেক কমিটির নেতৃবৃন্দের নামে দায়ের কৃত সকল মামলা প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত গৃহিত।

বর্তমান দ্বিধা-বিভক্ত কার্যকরি কমিটিকে এক হয়ে পূণরায় ট্রাস্টের আগামী নির্বাচন পর্যন্ত কার্যক্রম চালিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। একই সাথে দুইটি কমিটি কর্তৃক দুইটি নির্বাচনের যে তারিখ দেয়া হয়েছিল তা বাতিল করে নতুন নির্বাচনের তারিখ নির্ধারনের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। এতে সিদ্ধান্ত হয় ট্রাস্টের ঐক্যের স্বার্থে আগামী নির্বাচন সিলেকশনের মাধ্যমে অনুষ্ঠিত হবে। এজন্য একটি সিলেকশন কমিটি গঠন করা হয়। তারা হচ্ছেন সাবেক সাংসদ আলহাজ্ব সফিকুর রহমান চৌধুরী, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মুহিবুর রহমান, প্রবীন মুরব্বী আলহাজ্ব পংকি খান, ট্রাস্টের সাবেক সভাপতি শাহ আজিজুর রহমান, এ কে এম সেলিম, মির্জা আসাব বেগ, ট্রাস্টি গোলজার খান।

সভার সভাপতি আলহাজ্ব সফিকুর রহমান চৌধুরী প্রবাসে বিশ্বনাথবাসীর অবদানের কথা তুলে ধরেন এবং বিশ্বনাথের মুরব্বীদের ঐতিহ্য বজায় রাখতে সকল পক্ষকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে ট্রাস্ট পরিচালনার আহবান জানান।

সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মুহিবুর রহমান সুষ্ঠু ও সুন্দরভাবে সকল সমস্যার সমাধান করতে উভয় পক্ষের আন্তরিক সহযোগিতার জন্য সবাইকে ধন্যবাদ জানান এবং আগামীতে ট্রাস্টকে সুন্দরভাবে পরিচালনার আহবান করেন।

প্রবীন ট্রাস্টি আলহাজ্ব পংকি খান সকল পক্ষের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। সমস্যা সমাধানের সবার সহযোগিতার জন্য ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। তিনি আগামীতে সুন্দরভাবে ট্রাস্ট পরিচালনার জন্য বর্তমান কমিটির প্রতি আহবান করেন এবং সার্বিক সহযোগিতা আশ্বাসদেন।