আল-ক্বিবলাহ ট্রাভেলসের ১১তম হজ্জ প্রশিক্ষণ : হজ্জপালনে প্রস্তুতি নিলেন ৫শতাধিক যাত্রী

144

ওয়ানবাংলানিউজ: বৃটেনের অন্যতম প্রাচীন হজ্জসেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান আল-ক্বিবলাহ ট্রাভেলন্স এন্ড ট্যুর এর উদ্যোগে অনুষ্ঠিত হলো এগারোতম হজ্জ তালিম অনুষ্ঠান। ৩০ জুন রোববার বেলা ২টা থেকে বিকেল ৬টা পর্যন্ত ৪ ঘণ্টাব্যাপী সময়ে লন্ডন মুসলিম সেন্টারের গ্রাউণ্ড ফ্লোরে এই প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়। এতে চলতি বছরের হজ্জযাত্রী ৫ শতাধিক নারী-পুরুষ অংশগ্রহণ করেন।
চার ঘণ্টাব্যাপী হজ তালিম অনুষ্ঠানে বিষয়ভিত্তিক আলোচনায় অংশ নেন বিশেষজ্ঞ আলেমগন। ধাপে ধাপে হজের করণীয় শীর্ষক আলোচনা পেশ করেন বিশিষ্ট ইসলামি চিন্তাবিদ ড. আবুল কালাম আজাদ, মাওলানা শায়েখ আব্দুর রব ও মাওলানা শায়েখ আবু সাঈদ আনসারী। হজ্জযাত্রীদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেন আল-ক্বিবলাহ ট্রাভেলসের ম্যানেজিং ডাইরেক্টর আনোয়ার আলী ও ডাইরেক্টর আলহাজ্ব খান। সকলকে ধন্যবাদ জানিয়ে বক্তব্য রাখেন আল ক্বিবলাহ ট্রাভেলসের হেড অব ওমরাহ মাহবুবুর রহমান চৌধুরী ও ম্যানেজার আব্দুল মালিক। শুরুতে পবিত্র কুরআন থেকে তেলাওয়াত করেন সোলেমান আলী।

প্রশিক্ষণ প্রদানকালে বক্তারা বলেন, হজ্জ হচ্ছে ইসলামের পাঁচটি স্তম্ভের মধ্যে অত্যন্ত গুরুত্বপুর্ণ একটি স্তম্ভ। প্রত্যেক সামর্থবান মুসলমানের জন্য জীবনে একবার হজ্জ পালন করা অপরিহার্য। এই ফরজ পালনে শারীরিকভাবে বেশি পরিশ্রম করতে হয়। তাই হাজযাত্রীদের হজ্জের পুর্বে শারিরীক ও মানসিকভাবে সার্বিক প্রস্তুতি গ্রহণ প্রয়োজন।

তাঁরা আরো বলেন, হজ্জে যাওয়ার পুর্বে প্রত্যেক যাত্রীর জন্যই প্রশিক্ষণ গ্রহণ করা অত্যাবশ্যক। কারণ প্রকৃত নিয়ম-নীতি জানা না থাকলে বিশুদ্ধভাবে হজ্জ পালন করা সম্ভব নয়। আর বিশুদ্ধভাবে হজ্জ পালন করতে না পারলে এটা হবে শুধু মক্কা-মদীনা ভ্রমণ, হজ্জ পালন নয়। তাই হজে যাওয়ার পুর্বে হজ্জ প্রশিক্ষণে অংশগ্রহণের কোনো বিকল্প নেই।

ড. আবুল কালাম আজাদ বলেন, যারা হজ্জে যান তারা হচ্ছেন আল্লাহ তায়ালার অতিথি। তাই হাজিদেরকে সেখানে আল্লাহ তায়ালার অতিথি হিসেবেই থাকতে হবে। এমন কোনো কাজ করা উচিত নয় যে, আল্লাহর অতিথি হওয়ার পরিবর্তে শয়াতানের অতিথি হিসেবে পরিগণিত হতে হয়। তিনি হজ্জগমনের প্রাক্কালে একজন আরো একজনের কাছ থেকে মাফ চেয়ে নেওয়ার আহবান জানান। তিনি বলেন স্বামী তাঁর স্ত্রীকে মাফ করে দেবেন, স্ত্রী মাফ করে দেবেন তাঁর স্বামীকে। মনে রাখতে হবে, আপনি যদি একজনকে ক্ষমাসুন্দর দৃষ্টিতে দেখেন, আল্লাহ তায়ালাও আপনাকে ক্ষমা করে দিবেন।

মাওলানা আব্দুর রব হজ্জযাত্রীদের গ্রুপ লিডারের নির্দেশনা মেনে চলার আহবান জানিয়ে বলেন, অন্যথায় অগনিত মানুষের ভীড়ে হারিয়ে যাওয়ার আশংকা আছে। হারিয়ে গেলে ভালোভাবে হজ্জ পালন করতে পারবেন না। তিনি বলেন, হজ্জে গিয়ে অনেক স্বামী স্ত্রী অপ্রয়োজনীয় কেনাকাটায় ব্যস্ত হয়ে পড়েন। এই কেনাকাটা করতে গিয়ে অনেক সময়ই স্বামী স্ত্রীর মধ্যে তুমুল ঝগড়া লাগতে দেখা যায়। ঝগড়ার মুল কারণ হয়-কে কার পক্ষের স্বজনের জন্য কাপড়-চোপড় বেশি কিনবেন ইত্যাদি। বাস্তবে দেখে গেছে কেনা-কাটাকে কেন্দ্র করে স্বামী স্ত্রী এমন ঝগড়ায় নিপতিত হয়েছেন যে, হজ্জ চলাকালিন সময়ে একজন আরেকজনের সাথে কথা বলা ছেড়ে দিয়েছেন। তাই তিনি হজ্জে গিয়ে কেনাকাটায় লিপ্ত হওয়া থেকে বিরত থাকতে সকলের প্রতি অনুরোধ জানান।

উল্লেখ্য, ৪ ঘণ্টাব্যাপী হজ্জ তালিম অনুষ্ঠানে প্রশিক্ষকগন হজ পালনের নিয়মনীতি তথা খুঁটিনাটি যাবতীয় বিষয়াবলী পূূখানুপুুখভাবে বুঝিতে দেন। কীভাবে ওমরা এবং হজ্জের নিয়ত করতে হয়, কীভাবে এহরাম পরতে হয়, কীভাবে ক্বাবা ঘর তাওয়াফ এবং সাফা ও মারওয়া পর্বতের মধ্যখানে দৌঁড়াতে হয়। আরাফা ময়দানে অবস্থান করা, মুজদালিফায় রাত্রিযাপন, জামারায় কংকর নিক্ষেপ ও কুরবানী করাসহ হজ্জ শেষে মদীনায় রাসুল (সাঃ) রওজা জিয়ারতের নিয়মনীতিও শিক্ষা দেয়া হয়।

হজ্জযাত্রীরা প্রতি বছর তালিম আয়োজনের জন্য আল ক্বিবলাহ ট্রাভেলসকে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, এই প্রতিষ্ঠান শুধু যে ব্যবসাকেই প্রধান্য দেয়না তার প্রমাণ হচ্ছে হজের পুর্বে হজ্জ তালিম আয়োজন এবং হজ্জ পালন শেষে ফিরে আসার পর হজ্জ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠান আয়োজন। তারা চাইলে এই দুই অনুষ্ঠান না করলেও পারতেন। কিন্তু তারা প্রকৃত অর্থেই হাজিদের সেবা করতে চান বলেই করে থাকেন।

উল্লেখ্য, এ বছর আল-ক্বিবলাহ ট্রাভেলসের মাধ্যমে ৬টি ফ্লাইটে ৫শতাধিক নারী-পুরুষ হজ পালনে যাচ্ছেন। প্রথম ফ্লাইট ছেড়ে যাবে ২৬ জুলাই এবং এরপর পর্যায়ক্রমে আরো ৫টি ফ্লাইট লন্ডন ছেড়ে যাবে। সর্বশেষ ফ্লাইট যাবে ৩ আগস্ট।