পাকিস্তানের আকাশপথ ব্যবহার করবে না ইন্ডিয়া

134

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: পাকিস্তান অনুমোদন দিলেও তার আকাশসীমা ব্যবহার করবেন না ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। কিরগিজস্তানের বিশকেক-এ অনুষ্ঠেয় সাংহাই কো-অপারেশন অর্গাইজেশনের (এসসিও) সম্মেলনে যোগ দেবেন তিনি। এক্ষেত্রে মঙ্গলবার নিজের আকাশসীমা ব্যবহার করতে মোদিকে অনুমোদন দেয় পাকিস্তান। তার একদিন পরেই বুধবার পাকিস্তানের আকাশসীমা ব্যবহার না করার সিদ্ধান্ত জানিয়েছে ভারত। এক্ষেত্রে পাকিস্তানের আকাশসীমা এড়িয়ে মধ্য এশিয়ার দেশগুলোর ওপর দিয়ে উড়ে যাবে মোদিকে বহনকারী বিমান। এ খবর দিয়েছে অনলাইন টাইমস অব ইন্ডিয়া।

এতে বলা হয়েছে, মোদিকে বহনকারী ভিভিআইপি বিমান পাকিস্তানকে এড়িয়ে উড়বে ওমান, ইরান ও মধ্য এশিয়ার দেশগুলোর ওপর দিয়ে। তারপর তা পৌঁছে যাবে বিশকেক-এ। ১৩-১৪ জুনে এখানে এসসিও’র সম্মেলনে যোগ দেয়ার শিডিউল রয়েছে তার।

ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বলেছে, এসসিও সম্মেলনে যোগ দেয়ার জন্য ভিভিআইপি বিমানটি বিশকেক-এ যাওয়ার জন্য দুটি রুট খুঁজে পেয়েছে। একটি সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে যে, ভিভিআইপি এয়ারক্রাফটটি ওমান, ইরান ও মধ্য এশিয়ার দেশগুলোর ওপর দিয়ে উড়ে যাবে বিশকেক-এ। এর আগে পাকিস্তানের আকাশসীমা ব্যবহারের অনুমতি চেয়েছিল সরকার।

দৃশ্যত পাকিস্তানের সঙ্গে ভারতের বিরোধ কঠিন থেকে আরো কঠিনের দিকে যাচ্ছে। একটি সর্বাত্মক যুদ্ধ এড়াতে পারলেও দুই রাষ্ট্রের মধ্যে এক বরফ শীতল সম্পর্ক বিরাজ করছে। নরেন্দ্র মোদি প্রথম দফায় ২০১৪ সালে নির্বাচিত হওয়ার পর শপথ অনুষ্ঠানে আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন পাকিস্তানের তখনকার প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরীফকে। তখন অনেকেই ধরে নিয়েছিলেন চির বৈরি এই দুটি দেশের মধ্যে বিরাজমান অচলাবস্থা এবং দীর্ঘদিনের জমে থাকা সঙ্কটগুলোর সমাধান হবে। কিন্তু আস্তে আস্তে তা কঠিন হতে তাকে। ক্ষমতায় আসেন পাকিস্তানে নতুন প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। এবার দ্বিতীয় দফায় নির্বাচিত প্রধানমন্ত্রী মোদি শপথ অনুষ্ঠানে তাকে আমন্ত্রণ জানান নি। তা সত্ত্বেও তাকে অভিনন্দন জানাতে থাকেন ইমরান খান। তিনি আঞ্চলিক শান্তির জন্য দুই দেশকে একসঙ্গে কাজ করার ওপর গুরুত্বারোপ করে চিঠি লিখেছেন মোদিকে। অনেকেই আশা করছেন এসইসি সম্মেলনের ফাঁকে এই দু’নেতার বৈঠক হতে পারে। কিন্তু ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এরই মধ্যে বলে দিয়েছে, মোদি ও ইমরান খানের মধ্যে দ্বিপক্ষীয় কোনো বৈঠক আয়োজন করা হয় নি সেখানে।