নির্বাচন পরিপন্থী কাজ করলে বিচারের মুখোমুখি হতে হবে : সিইসি

74

ঢাকা সংবাদদাতা: প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নূরুল হুদা নির্বাচনী কর্মকর্তাদের প্রতি হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেছেন, নির্বাচনী কাজে নিয়োজিত রিটার্নিং কর্মকর্তা, সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা ও পুলিশ সুপারসহ যে কেউ নির্বাচনী আচরণ পরিপন্থী কাজ করলে প্রত্যেককেই বিচারের মুখোমুখি হতে হবে। কেউ রেহাই পাবে না। নির্বাচন কমিশন কোনো রকম ছাড় দেবে না। কথাটা মনে রাখতে হবে।

আজ বুধবার রাজধানীর আগারগাঁওয়ের ইটিআই ভবনে পঞ্চম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা ও সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তাদের প্রশিক্ষণের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে সিইসি এই হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন।

অতি উৎসাহীদের বিষয়ে সিইসি বলেন, ‘কোথাও কোথাও কেউ অতি উৎসাহী হয়ে কাজ করে থাকেন। হুজুরদের ওপরে তো রোজা-রমজান মাস এলে আমাদের আস্থা বেড়ে যায়। কিন্তু গত নির্বাচনে এক জায়গায় এক হুজুরকে দেখি, তিনি নিজে গিয়ে সিল-ছাপ্পর দিয়ে বাক্সে ঢুকানোর চেষ্টা করেছেন সহকর্মীদের নিয়ে। এই যে বিষয়গুলো বা অবক্ষয়গুলো তাদের প্রশিক্ষণ দেওয়ার সময় আপনাদের বলতে হবে।’

কে এম নূরুল হুদা বলেন, ‘এগুলা কেমন ধরনের আচরণ, যেখানে আপনাদের ওপর একটা নির্বাচনের সব দায়িত্ব অর্পিত থাকে, সেখানে রাতে গিয়ে আপনাদের প্রিজাইডিং অফিসাদের, যাদের ন্যায় বিচারের প্রতিষ্ঠার জন্য নিয়োজিত করা হয়, তারা যদি এই কাজ করে তাহলে কীভাবে হবে। তাদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে, তারা আইনের সম্মুখীন হবে। তারা অবশ্যই শাস্তি পাবে।’

সুষ্ঠু নির্বাচন উপহার দেওয়ার বিষয়ে সিইসি হুদা বলেন, ‘নির্বাচনের পবিত্র দায়িত্ব আপনারা পালন করতে যাচ্ছেন। আমি আশা করি, কমিশন আশা করে যে, আপনাদের মাধ্যমে প্রতিষ্ঠিত হবে সুষ্ঠু নির্বাচন উপহার দেওয়া। পারবেন না আপনারা?’

চতুর্থ উপজেলা নির্বাচনের পঞ্চম ধাপের ভোট হবে ১৮ জুন। এতে মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ দিন ২১ মে, যাচাই ২৩ মে, প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ দিন ৩০ মে।