পরমাণু চুক্তি নিয়ে ইরানের আল্টিমেটাম প্রত্যাখান ইউরোপের

195

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: চার বছর আগে ইরানের সঙ্গে বিশ্বের ছয়টি শক্তির পারমাণবিক সমঝোতায় দেয়া প্রতিশ্রুতি রক্ষায় ইরানের হুমকির সাড়া দিয়েছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন।

বৃহস্পতিবার এক বিবৃতিতে জানায়, তারা যেকোনো আল্টিমেটাম প্রত্যাখান করছে। কিন্তু বহুমুখী চুক্তি রক্ষায় তারা প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।

যৌথ বিবৃতিতে ইউরোপীয় ইউনিয়নের উচ্চ প্রতিনিধি এবং ফ্রান্সের পররাষ্ট্রমন্ত্রী, জার্মানি এবং যুক্তরাজ্য জানিয়েছে, আমরা যেকোনো ধরনের আল্টিমেটাম প্রত্যাখান করছি। জেসিপিওএ এবং এনপিটি অধীনে ইরানের সঙ্গে চুক্তির প্রতিশ্রুতি রাখা হবে।

এর আগে ২০১৫ সালের পরমাণু চুক্তির শর্ত না রাখলে বিশ্ব শক্তিকে ৬০ দিনের মধ্যে ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধির হুমকি দিয়েছে ইরান।

বুধবার রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনে ইরানের প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি এ কথা বলেন। এর আগে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এক বছর আগে পরমাণু চুক্তি থেকে নিজেদের সরিয়ে নেয়।

রুহানি বলেন, সমঝোতায় স্বাক্ষর করা যুক্তরাজ্য, ফ্রান্স, জার্মানি, চীন এবং রাশিয়াকে ৬০ দিনের সময় দেয়া হয়েছে তেহরানে তেল ও ব্যাকিং খাতকে যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞা থেকে রক্ষা করতে।

পারমাণবিক কর্মসূচি হ্রাস করার বিনিময়ে আন্তর্জাতিক নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের শর্তে ২০১৫ সালে নিরাপত্তা পরিষদের স্থায়ী ৫ সদস্য ও জার্মানির সঙ্গে ইরান জয়েন্ট কম্প্রিহেনসিভ প্ল্যান অব অ্যাকশন নামের চুক্তিতে সই করেছিল।

যুক্তরাষ্ট্রের সর্বশেষ নিষেধাজ্ঞায় ইরানি মুদ্রার মূল্যমান কমতে কমতে রেকর্ড সর্বনিম্ন অবস্থানে পৌঁছেছে। মূল্যস্ফীতি হয়েছে চারগুণ, হাতছাড়া হয়েছে বিদেশি বিনিয়োগ।

এরপরও ইরান এতদিন ধরে চুক্তিতে দেয়া সব প্রতিশ্রুতিই রক্ষা করে আসছে বলে জানিয়েছেন আন্তর্জাতিক আণবিক শক্তি সংস্থার (আইএইএ) পর্যবেক্ষকরা।

২০১৫ সালে চুক্তির পর থেকে এ সংস্থাই তেহরানের পারমাণবিক কার্যক্রম পর্যবেক্ষণ করে আসছে।