মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস নিয়ে নির্মিত ‘সংগ্রাম’ যুক্তরাজ্যে প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পাচ্ছে

270

ওয়ানবাংলানিউজ : ১৯ এপ্রিল থেকে যুক্তরাজ্যের বিভিন্ন প্রেক্ষাগৃহে প্রদর্শিত হবে বাংলাদের মহান মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস নিয়ে নির্মিত ‘সংগ্রাম’। যুক্তরাজ্যের প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পাওয়া এটাই প্রথম কোনো বাংলা চলচ্চিত্র। গত ১৬ এপ্রিল মঙ্গলবার এক জমজমাট আয়োজনে চলচ্চিত্রটির অভিষেক অনুষ্ঠিত হয়। লন্ডনের থেমস নদীতে ভাসমান ঐতিহাসিক ‘ওয়েলিংটন’ জাহাজে আয়োজিত এ অনুষ্ঠানে বাংলাদেশি কমিউনিটি নেতৃবৃন্দের পাশাপাশি ব্রিটিশ মূল ধারার রাজনীতিক ও ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। ‘মোরিঙ্গা এন্টারটেইনমেন্ট’ চলচ্চিত্রটির প্রচারের কাজ করছে।

চলচ্চিত্রটির মূল চরিত্র করিম উদ্দিনের জন্ম ব্রিটিশ শাসীত ভারতে ১৯২৭ সালে। ১৯৪৭ এ দেশ ভাগের পর করিম উদ্দিন হলেন পাকিস্তানের নাগরিক। ১৯৭১ এ বাঙালি এই যুবক লড়াই করেন স্বাধীনতার জন্য, স্বাধীন দেশের জন্য। হলেন স্বাধীন বাংলাদেশের গর্বিত নাগরিক। জীবিকার তাড়নায় পাড়ি দিলেন বিলেতে। তিনি এখন আবারও ব্রিটিশ নাগরিক। নাগরিকত্ব বদল হয়, ভূখ-ের বদল হয়- কিন্তু করিম উদ্দিনের বাঙালি স্বত্তা থাকে অটুট। তাই শেষ বয়সে বিলেতের হাসপাতালে শায্যাশায়ী করিমে উদ্দিনের স্মৃতিপটে ফিরে ফিরে আসে বাঙালির অধিকার আন্দোলনের বিভৎসব সব চিত্র। এভাবেই ১৪০ মিনিটের এই চলচ্চিত্রে বাঙালির ভাষা আন্দোলন, পাকিস্তানী বাহিনীর গণহত্যা এবং বিরাঙ্গণাদের কথা তুলে ধরার পাশাপাশি স্থান পেয়েছে বাংলাদেশের অভ্যুর্থানের ঐতিহাসিক প্রেক্ষাপট।

ইংরেজি ভাষায় গল্পের বর্ণনা আর ইংরেজি সাবটাইলে তৈরি এই চলচ্চিত্রের মাধ্যমে আন্তর্জাতিক অঙ্গণে বাংলাদেশের সংগ্রামের ইতিহাস তুলে ধরাই লক্ষ্য। চলচ্চিত্রটির লেখক, পরিচালক ও নির্মাতা বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত ব্রিটিশ নাগরিক মুনসুর আলী। সিটি অব লন্ডন করপোরেশনের সদস্য মুনসুর আলী বলেন, বাঙালিদের ওপর ইতিহাসের জঘণ্যতম গণহত্যা চালিয়েছে পাকিস্তানীরা। মাত্র ৪৮ বছর আগের সেই ইতিহাস ভুলতে বসেছে বিশ্ব। অধিকার আদায়ে বাঙালির স্বকীয় সংগ্রামের ইতিহাস যুক্তরাজ্যে বেড়ে উঠা বাঙালি নতুন প্রজন্মের পাশাপাশি আন্তর্জাতিক অঙ্গণে তুলে ধরার তাড়না থেকেই তিনি ‘সংগ্রাম’ চলচ্চিত্রটি নির্মাণ করেছেন। মুনসুর আলী বলেন, শুরুতে তিনি একটি তথ্যচিত্র নির্মাণ করতে চেয়েছিলেন। কিন্তু তথ্য উপস্থাপনের কাজটি বিনোদনমূলক করতে চলচ্চিত্র নির্মাণে মনস্থির করেন। তিনি বলেন, “আমি একজন গর্বিত লন্ডনবাসী। কিন্তু একই সাথে আমি বাঙালি। বাঙালির অনন্য ইতিহাস বিশ্বে প্রতিষ্ঠিত হোক-এটাই আমার চাওয়া।”
চলচ্চিত্রটির মূল চরিত্রে অভিনয় করেছেন আমান রেজা, দিলরুবা ইয়াসমিন রুহী ও ভারতের প্রখ্যাত অভিনেতা অনুপম খের প্রমুখ।

ব্রিটিশ আইনপ্রণেতা রূপা হক তাঁর ছেলেকে নিয়ে ‘সংগ্রাম’ এর অভিষেক অনুষ্ঠানে আসেন। তিনি বলেন, চলচ্চিত্রটি দেখার পর তাঁর স্মৃতিপটে নতুন করে জাগ্রত হয়েছে বাংলাদেশের ইতিহাস। যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের সভাপতি সুলতান মাহমুদ শরীফ অশ্রুসিক্ত কণ্ঠে বলেন, চলচ্চিত্রে বাঙালির ওপর যেসব নির্মমতার চিত্র দেখানো হয়েছে, সেসব তিনি নিজ চোখে প্রত্যক্ষ করেছেন। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় ব্রিটিশ নৌ বাহিনীর বহরে থাকা ঐতিহাসিক ‘এইচকিউএম ওয়েলিংটন’ জাহাজের ক্যাপ্টেন মাস্টার বুথ এবং তাঁর স্ত্রী ল্যাডি বুথও অভিষেক অনুষ্ঠানে চলচ্চিত্রটি উপভোগ করেন। তাঁরা ইতিহাস নির্ভর এই চলচ্চিত্রের ভূয়শী প্রশংসা করেন।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ক্যানারি ওয়ার্ফ গ্রুপের সেক্রেটারি জন গারউড, কমিউনিটি অ্যানগেজমেন্ট অফিসার জাকির খান, গ্রেটার লন্ডন অথোরিটির সাবেক সদস্য মুরাদ কুরেশী, সাবেক কিক বক্সিং বিশ্ব চ্যাম্পিয়ান আলী জ্যাকো, বাংলাদেশের নাট্য ও চলচ্চিত্র নির্মাতা নোমান রোবিন প্রমুখ।