টাওয়ার হ্যামলেটসের স্পীকার পার্লারে মহিউল ইসলাম জায়গীরদারের সম্মানে মতবিনিময়

215

ওয়ানবাংলানিউজ: গুণী জনকে সম্মান করা, মহৎ কাজের স্বীকৃতি দেয়া সামাজিক দায়িত্ব। সামাজিক দায়িত্ব পালনের মাধ্যমে যেমন গুণী জনেরা তাদের কাজে উৎসাহ পায় তেমনি নতুন প্রজন্মের মাঝে তৈরী হয় ভালো কাজের স্পৃহা। লন্ডন বারা অব টাওয়ার হ্যামলেটসের স্পীকার হিসেবে সিলেটের একটি সেকেন্ডারি স্কুলের প্রতিষ্টাতা প্রধান শিক্ষককে স্বীকৃতি ও সম্মান প্রদর্শন করতে পারায় খুবই ভালো লাগছে। এজন্য টাওয়ার হ্যামলেটস কাউন্সিল ও স্পীকারের অফিস গর্বিত। গত ১২ এপ্রিল শুক্রবার বিয়ানিবাজার উপজেলার ঢাকাউত্তর মোহাম্মদপুর উচ্চ্ বিদ্যালয়ের প্রতিষ্টাতা প্রধান শিক্ষক, একাধারে ৪০ বছর সেবা প্রদানকারী বর্তমান কানাডা প্রবাসী মহিউল ইসলাম জায়গীরদারের সম্মানে আয়োজিত মতবিনিময় সভায় টাওয়ার হ্যামলেটসের স্পীকার কাউন্সিলার আয়াস মিয়া এসব কথা বলেন।

শুক্রবার দুপুর ১২টায় স্পীকার কাউন্সিলার আয়াস মিয়ার আমন্ত্রণে স্পীকার পার্লারে এই মতবিনিময় সভা অনুষ্টিত হয়। সংবাদিক এম এ জামানের উপস্থাপনায় এসময় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ডিএম হাইস্কুল প্রাক্তন ছাত্র ছাত্রী পুনর্মিলনী কমিটির আহবায়ক ফয়জুর রহমান খান নুনু, মঞ্জুরুস সামাদ চৌধুরী মামুন, সদস্য সচিব নাহিন হালিম মাহমুদ, উপদেষ্টা কাউন্সিলার আব্দুল আজিজ ত্বকী, স্পীকারের কনসর্ট ও টাওয়ার হালেটস কেয়ারর্স এসোসিয়েশনের প্রেসিডেন্ট আবুল হোসেন প্রমুখ।

মতবিনিময় সভায় মহিউল ইসলাম জায়গীরদার স্কুল প্রতিষ্টার ইতিহাস তুলে ধরেন এবং স্পীকার আয়াস মিয়ার প্রশংসা করে বলেন, নিজের জন্য ভালো করা সহজ কিন্তু সমাজে আলো ছড়ানো ও উন্নয়ন করা কঠিন। সমাজের উন্নয়নে অনেক লোভনীয় অফার বাঁধ সাধতে পারে। এর জন্য প্রয়োজন নিষ্টা ও একাগ্রতা। তিনি আসছে ১৪ এপ্রিলের লন্ডনে অনুষ্টিতব্য এক্স স্টুডেন্স রিউনিয়নের সফলতা কামনা করেন। এসময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন অর্থ সচিব হেলাল আহমদ, যুগ্ম আহবায়ক আব্দুল মিজান মারজান, আজিজ রহমান, খয়ের আহমদ চৌধুরী ও বাবার চৌধুরী প্রমুখ।