লন্ডনে সিলেট ২ আসনের প্রার্থী তাহসিনা রুশদির লুনার সমর্থনে সভা

240

ওয়ানবাংলানিউজ: জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপি’র নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোট এবং ঐক্যফ্রন্ট মনোনীত সিলেট ২ আসন বিশ্বনাথ ওসমানী নগরের ধানের শীষের প্রার্থী বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার উপদেষ্ঠা, বিএনপির সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক এবং বালাগঞ্জ, বিশ্বনাথ ও ওসমানীনগরের সাবেক এমপি নিখোঁজ বিএনপি নেতা এম ইলিয়াস আলীর সহধর্মিনী, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কুয়েত মৈত্রী হলের সাবেক এজিএস তাহসিনা রুশদির লুনার সমর্থনে যুক্তরাজ্যে গত ৪ ডিসেম্বর এক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন ওসমানী নগরের প্রবীণ কমিউনিটি নেতা চেরাগ আলী।
যুক্তরাজ্য বিএনপির সাবেক সহ সভাপতি আলহাজ্ব তৈমুছ আলীর পরিচালনায় সভায় বক্তব্য রাখেন আবুল কালাম আজাদ, হাজী রইছ আলী, আব্দুল গফুর, রফিক উল্লাহ, গৌছ আলী, গোলাম রাব্বানী, আব্দুল কাইয়ুম, গৌছ খান, গোলজার খান, ড. মুজিবুর রহমান, মিসবাহ উদ্দিন, আব্দুল ওদুদ শাহেল, আব্দুল কদ্দুছ, আফতাব আলী (টাকু মিয়া), আব্দুল বাছিত বাদশা, আফজাল হোসেন, জসিম উদ্দিন সেলিম, আকলুছ মিয়া, মদরিছ আলী মফজ্জুল, কবির মিয়া, ফয়জুল ইসলাম, আব্দুস সালাম আজাদ, কদর উদ্দিন, তৈয়বুর রহমান, সেবুল মিয়া, খালেদ খান, হাবিবুর রহমান, নূরুল আলী রিপন, আব্দুর রহিম রঞ্জু, আবু তাহের, আব্দুল হামিদ খান সুমেদ, আবজার হোসেন, মুনতাছির খান, নুরুল ইসলাম, হাজি সাদেক আলী, আখলাকুর রহমান, সফিক উদ্দিন, আশরাফ আলী, নুরুল ইসলাম, আব্দুস সুপান, আব্দুস সাত্তার ইমন, আকতার হোসেন সেলিম, হারুন মিয়া, আলমগীর হোসেন, কাওছার মিয়া, লোকমান হোসেন আব্দুল কাইয়ুম, আজম আলী, নূর আলম, রফিক আলী, নূর আলম, রফিক আলী, ময়ুর য়িা, মুহিব মিয়া প্রমুখ।
বক্তারা সকল বাধা-বিপত্তি মোকাবেলা করে বাংলাদেশে গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার, খালেদা জিয়াকে মুক্ত করা এবং এম ইলিয়াস আলীকে অক্ষত অবস্থায় ফিরে পাওয়ার লক্ষ্যে জাতীয় সংসদের নির্বাচনী আন্দোলনে ধানের শীষের প্রার্থীর পক্ষে সর্বাত্মক সহযোগিতা প্রদানের দৃঢ় অঙ্গীকার ব্যক্ত করেন । সভায় এই নির্বাচনকে আন্দোলনের অংশ মনে করে সকল প্রবাসীদেরকে দেশে অবস্থারত পরিবার পরিজন এবং যার যার এলাকায় বিশেষ করে কেন্দ্রভিত্তিক ভোটারদের উৎসাহিত করতে জোরালো প্রচেষ্টা চালানোর অনুরোধ করা হয়। বক্তারা নির্বাচন কমিশনকে অবাধ ও নিরপেক্ষ নির্বাচন সম্পন্ন করতে গায়েবি মামলা এবং বিরোধী দলের নেতাকর্মীদের গ্রেফতার ও হয়রানি বন্দ্বে কার্যকর উদ্যোগ গ্রহণের জোর দাবি জানান। প্রবাসীরা বন্দ্বুপ্রতিম এবং উন্নয়ন সহযোগী রাষ্ট্রসমূহে বিদেশে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি ফিরিয়ে আনার লক্ষ্যে জনগণের ভোটাধিকার প্রয়োগ করার সুযোগ সৃষ্টি করে দেয়ার জন্য প্রশাসনের সংশ্লিষ্ট সকলকে দলের কর্মচারী না হয়ে প্রজাতন্ত্রের কর্মচারীর ভূমিকা পালনের আহবান জানান। বক্তারা বলেন, প্রতিটি ভোটার শুধু ভোট প্রদান করলেই হবে না, নিজের ভোটের সঠিক গণনা এবং কারচুপি বন্দ্ব রাখতে প্রতিটি ভোটকেন্দ্রে শান্তিপূর্ণভাবে পাহারাদারের ভূমিকায় নিয়োজিত থাকতে হবে। সভায় আশাবাদ ব্যক্ত করে বলা হয় যে, দেশের জনগণ জেগে উঠছে, তাই ৩০ ডিসেম্বরের নির্বাচনে ধানের শীষের প্রার্থীদের ভোট প্রদানের মাধ্যমে রাষ্ট্রীয় গুম, খুন, দূর্নীতি ও দুঃশাসনের বিরুদ্বে ভোট বিপ্লব সংগঠিত হবে ইনশাআল্লাহ।