শুক্রবার নির্বাচনকালীন সরকার গঠিত হতে পারে: অর্থমন্ত্রী

54

ঢাকা সংবাদদাতা: আগামীকাল শুক্রবার নির্বাচনকালীন সরকার গঠিত হতে পারে। তবে এই সরকারে নতুন কোনও মুখ আসছে না। বললেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত।

বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে অর্থনৈতিক ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির সভা শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

অর্থমন্ত্রী বলেন, কালকে, কালকের পরে নির্বাচনকালীন সরকার। মন্ত্রিসভায় নতুন করে কোনও সদস্য অন্তর্ভুক্ত হচ্ছেন কিনা এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, বোধ হয় হচ্ছে না।

টেকনোক্র্যাট চারজনের পদত্যাগপত্র গ্রহণ হবে কিনা- প্রশ্নে মুহিত বলেন, তারা এখনও আছেন। অ্যাকসেপ্ট করতে হবে তো। অ্যাকসেপ্ট সম্ভবত কালকে (শুক্রবার) হতে পারে কিংবা আজকে রাতেও (বৃহস্পতিবার) হতে পারে। প্রধানমন্ত্রী যেদিন বলবেন…।

তাদের জায়গায় অন্য কাউকে দেওয়া হবে কিনা- প্রশ্নে অর্থমন্ত্রী বলেন, যারা আছেন তাদেরই চারজন কেউ কেউ চার্জে থাকবে। যার মিনিস্ট্রি একটা আছে তার দুইটা হয়ে যাবে।

তিনি বলেন, আমার মনে হয় না নির্বাচনকালীন সরকারে কোনও এডিশন হবে।

দুইদিন আগে প্রধানমন্ত্রী হঠাৎ চার টেকনোক্র্যাট মন্ত্রীকে পদত্যাগের নির্দেশ দেন। নির্দেশ পাওয়ার পরই মন্ত্রীরা পদত্যাগপত্র জমা দিয়েছেন। তবে তা এখনও গৃহীত হয়নি।

সে হিসেবে টেকনোক্র্যাট মন্ত্রীরা এখনো পদে বহাল আছেন।

এই চার মন্ত্রী হলেন- ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি বিষয়কমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার, ধর্মমন্ত্রী অধ্যক্ষ মতিউর রহমান, প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থানমন্ত্রী হিসেবেই ‍নূরুল ইসলাম বিএসসি এবং বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিমন্ত্রী ইয়াফেস ওসমান।

সচিবালয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু বলেন, পদত্যাগপত্র অ্যাক্সসেপ্ট তো করবেন, যেহেতু উনি বলেছেন করতে। এখন হয়তো সময়ের ব্যাপার।

‘প্রধানমন্ত্রী অ্যাকসেপ্ট করার সাথে সাথে তাদের মন্ত্রিত্ব থাকবে না …।’

নির্বাচনে দাঁড়াবেন কিনা প্রশ্নে মুহিত বলেন, না না। আমি তো দাঁড়াবো না। ইটস মাই ডিসিশন। আমি নমিনেশন পেপার সাবমিট করবো। ডামি কিছু সাবমিট করতে হয়। যদি আমার ক্যান্ডিডেট যে হবে তার মিস করে যায় তাহলে আমাকে দাঁড়াতে হবে এরকম ধরনের…। এটা রুটিন ব্যাপার। আই ওয়ান্ট টু রিটায়ার্ড।