ইন্ডিয়া ও চায়নার মধ্যে – যুদ্ধ লাগবে কি ? যুদ্ধ হলে কে জিতবে

320

মিলন মাহমুদ: এইমাসে চীন ও ভারতের মধ্যে সীমান্ত সংঘাতে বিশ জন ভারতীয় সৈন্যের মৃত্যুর পরে দুই দেশ ই সীমান্তে তাদের সৈন্য সংখ্যা ও যুদ্ধের সবরকম অস্ত্র মজুত করছে এখন প্রশ্ন হচ্ছে যুদ্ধ কি লেগে যাবে ?
নানা রকম বিশ্লেষণ ও আন্তর্জাতিক গবেষণায় পরমাণু শক্তিধর দুই দেশের মধ্যে সীমিত আকারে যুদ্ধের সম্ভাবনা খুবই বেশি। যদিও আমেরিকা , ব্রিটেন রাশিয়ার মত বিশ্বের ক্ষমতাধর দেশ গুলো প্রকাশ্যে দুই পক্ষকেই শান্ত থাকতে বলেছ, কিন্তু পরিস্থিতি যে কোন সময় নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যেতে পারে। বিশ্বের শক্তি শালী দেশ গুলোর তালিকায় চায়নার অবস্থান তৃতীয় ও ভারতের অবস্থান চতুর্থ ফলে কেউ যে কাউকে খুব একটা ছেড়ে কথা বলবে সে সম্ভাবনা কম। তবে ইন্ডিয়া বৃহৎ কোনো যুদ্ধে জড়ালে তাদের ক্ষতির সম্ভাবনা বেশি থাকায় কোনো অবস্থায় তারা যুদ্ধে জড়াতে চাইবে না। যুদ্ধ শুরু করা ইন্ডিয়ার ইচ্ছার উপর নির্ভর করে না মূলত চায়নার ইচ্ছার উপরেই অনেকটা নির্ভর করে। উত্তেজনা প্রশমনে দুই দেশ উচ্চ পর্যায়ের মিটিং করলেও দুই দেশ ই সীমান্তে তাদের অস্ত্র ও সৈন্য জড়ো করছে। এর মধ্যে চায়না পাকিস্তানে তাদের সাবমেরিন পাঠিয়ে অবস্থান শক্ত করেছে। ফলে ছোট খাটো একটা যুদ্ধের সম্ভাবনা খুবই বেশি বলেই মনে হচ্ছে।
যুদ্ধ হলে কে জিতবে ?
সামরিক শক্তি ইন্ডিয়ার তুলনায় চীনের প্রায় দ্বিগুন। সুইডিশ
ইন্টারন্যাশনাল পিস্ রিসার্চ সেন্টার এর হিসাবে চীনের কাছে ৩২০ টি ও ইন্ডিয়ার কাছে ১৫০ টি পারমানবিক অস্ত্র আছে। গ্লোবাল ফায়ার পাওয়ার এর হিসেবে এয়ারক্রাফট চায়নার আছে ৩২১০ টি আর ইন্ডিয়ার মাত্র ২১২৩ টি। পার্বত্য অঞ্চলের যুদ্ধের জন্য এটাক হেলিকপ্টার চায়নার আছে ২৮১ টি আর ইন্ডিয়ার মাত্র ২৩ টি। সাবমেরিন চায়নার আছে ৭৪ টি আর ইন্ডিয়ার আছে ১৬ টি। রকেট প্রজেক্টর চায়নার আছে ২৬৫০ টি আর ইন্ডিয়ার আছে ২৩৫ টি। ইন্ডিয়ার গোপন সমর্থনে বেশ কিছু রাষ্ট্র যেমন আছে,তেমনি চায়নার গোপনে ও প্রকাশ্যে সমর্থনা দেবে ইন্ডিয়ার পাশের দুই দেশ নেপাল ও পাকিস্তান , ফলে ইন্ডিয়া কে একসাথে দুই বা তিন দেশের সাথে যুদ্ধ করতে হতে পারে। যদিও পারমানবিক যুদ্ধ লাগার সম্ভাবনা নেই বললেই চলে তবে যুদ্ধে অন্য দেশ বিশেষ করে পাকিস্তান জড়িয়ে পড়লে পারমানবিক অস্ত্র ব্যাবহার হতে পারে। সবকিছু মিলিয়ে বলা যায় যুদ্ধ হলে চায়নার জেতার সম্ভাবনা বেশি।