অনলাইনে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্লাব ইউকে’র ঈদ আড্ডা

249

ওয়ানবাংলানিউজ: ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রায় অর্ধ শতাধিক সাবেক শিক্ষার্থী, শিক্ষক, গবেষক ও প্রফেশনালদের উপস্থিতিতে শনিবার লন্ডনে হোস্ট হলো জমজমাট ঈদ আড্ডা। যুক্তরাজ্যের বিভিন্ন শহর থেকে এ্যালামনাইরা  জুম এ্যাপের মাধ্যমে আড্ডায় যুক্ত হয়েছিলেন।

গত ২৬ জানুয়ারী লন্ডনে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্লাব ইউকের আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরুর পর করোনা ভাইরাসের লকডাউনের কারণে ক্লাবের কার্যক্রম কার্যত বন্ধ ছিলো। তবে ক্লাবের উদ্যোক্তরা ইউকেতে বসবাসরত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এ্যালামনাইদের মধ্যে অনলাইনে যোগাযোগ অব্যাহত রাখেন। তারই ধারাবাহিকতায় ৩০ মে অনলাইনে এই ঈদ আড্ডার আয়োজন করা হয়।

যুক্তরাজ্যে লকডাউনের সময় ব্রিটেনে বসবাসরত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এ্যালামনাই ও তাদের পরিবারের সদস্যরা তাদের অভিজ্ঞতা ও স্মৃতিচারণ করেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্লাব ইউকের জুম আড্ডার সঞ্চালনা করেন  সাংবাদিক ও ক্লাব ম্যানেজমেন্টের সদস্য তানভীর আহমেদ।

জুম আড্ডার শুরুতে ক্লাব ম্যানেজমেন্টের পক্ষ থেকে শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন থার্ড সেক্টর কনসালট্যান্ট বিধান গোস্বামী, সোনালি ব্যাংক ইউকের সাবেক ডেপুটি চিফ এক্সিকিউটিভ আমীরুল ইসলাম চৌধুরী, ব্যারিস্টার অজয় রায় রতন, ব্যারিস্টার চৌধুরী হাফিজুর রহমান, ব্যারিস্টার কাজী আশিকুর রহমান, আইনজীবী মুজাহিদুল ইসলাম, আইনজীবী ইউসূফ ইকবাল, তাসলিমা মীরা ও আইনজীবী ঝুমুর দত্ত।


আলোচনার শুরুতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্লাবের সদস্য ফাতেহা পলি ও  আরিফুর রহমান সহ যারা এনএইচের ফ্রন্টলাইন স্টাফ হিসেবে কোভিড ১৯ এর চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় কাজ করছেন তাদের অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা জানানো হয়। করোনা ভাইরাসের লকডাউনের সময় ফাতেহা পলির ৯ বছরের মেয়ে ইশাল ফাতেহা সরকার কিভাবে নিজের ইউটিউব ব্লগ খুলে অন লাইনে স্টোরি টেলিং শুরু করেছে সেই অভিজ্ঞতা শেয়ার করে।

সংবাদ পাঠিকা হিমিকা আযাদের কবিতা পাঠের পাশাপাশি, ঘর বন্দী ১১ বছরের ছেলে আহনাফ ওয়াসিফ তরণ কিভাবে সংবাদ লেখাও শিখে গেছে সেই সংবাদ পড়ে শুনিয়েছে এ্যালামনাইদের। পরে তরণ বঙ্গবন্ধুর জন্মশত বার্ষিকীতে প্রথম পুরস্কার জেতা নিজের আঁকা ছবিও সবার সাথে শেয়ার করে।

কভেন্ট্রিতে বসবাসকারী ১৯৯২ ব্যাচের ম্যানেজমেন্টের সাবেক শিক্ষার্থী সঙ্গীত প্রেমী রুমানা নাসির তার দুই মেয়েকে নিয়ে যুক্ত হয়েছিলেন গিটার আর পিয়নো নিয়ে। করোনা ভাইরাসের লকডাউনের সময়কে কাজে লাগিয়ে নতুন করে ব্লগিং শুরু করেছেন আরেক এ্যালামনাই কিশোয়ার মুনিয়া। মুনিয়া তার নতুন ব্লগের বিস্তারিত নিয়ে কথা বলেন ঈদ আড্ডায়।চারুকলা ইনস্টিটিউটের শিল্পী আসাদ লাইভ পোট্রেইট আঁকেন এনএইচএসের ফ্রন্ট লাইন স্টাফদের নিয়ে।করোনা ভাইরাসের পরিস্থিতি স্বাভাবকি হলে শিল্পী আসাদ তার চিত্রকর্ম নিয়ে প্রদর্শণীর উদ্যোগ নেবেন বলে জানিয়েছেন।

জুম আড্ডায় যুক্ত হয়েছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্লাব ম্যানেজমেন্টের অন্যতম সদস্য বাংলাদেশ ল অ্যাসোসিয়েশন ইউকের সাধারণ সম্পাদক শিবলী সাদিক, এ্যাডভোকেট কাউসার আলাম হীরা, এ্যাডভোকেট মামুন আল ফিরোজী, ব্যারিস্টার বেলায়েত হোসেন, এম মোত্তালিব ও শায়লা শিমলা। এছাড়াও যুক্ত হয়েছিলেন কমনওয়েলথ স্কলারশিপ কমিশনের এ্যাডভাইজার ও লিংকনশায়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনিয়র লেকচারার ডক্টর মাহফুজুর রহমান, ম্যানচেষ্টার থেতে যুক্ত হয়েছিলেন শিক্ষা ক্যাডারের পরিচালক রমা বিশ্বাস, বিসিএস শিক্ষা ক্যাডারের সাহেলা আক্তার, এডুকেশন কনসালট্যান্ট  গোলাম মর্তুজা, ব্যারিস্টার মেহেদী হাসান তালুকদার, রওশন জাহান, ফাতেম লিলি, রথিন গোস্বামী, কাদের জিলানী সহ প্রায় অর্ধশতাধীক এ্যালামনাই।

প্রায় আড়াই ঘন্টা ব্যাপী প্রাণবন্ত আড্ডা, কবিতা, গল্প পাঠ, গান, গিটার আর পিয়ানোর সুরে মেতে ছিলো ঢাকা বিশ্ববিদ্যলয় ক্লাব ইউকের সদস্যরা। বিশ্ববিদ্যালয়ের এ্যালামনাই ব্রিটেনের প্রখ্যাত সঙ্গীত শিল্পী সারোয়ারী আলমের সুরেলা কন্ঠের গান শুনতে শুনতে আড্ডার পরিসমাপ্তি ঘটে। আয়োজকরা জানিয়েছেন কভিড পরবর্তী সময়ে যুক্তরাজ্যে স্বাভাবিক জীবনযাত্রা শুরু না হওয়া পর্যন্ত ক্লাবের কার্যক্রম অনলাইনে অব্যাহত থাকবে।