করোনার প্রভাবে ৬১ বিলিয়ন ডলারের বাজেট ঘাটতিতে সৌদি আরব

    48

    অর্থনীতি ডেস্ক: করোনাভাইরাসে ৬১ বিলিয়ন ডলারের বাজেট ঘাটতিতে পড়েছে সৌদি আরব। এ্যারাবিয়ান বিজনেস ও আরব নিউজের প্রতিবেদনে এই তথ্য পাওয়া গেছে।

    করোনাভাইরাসে সৌদি আরবের ভিশন-২০৩০ স্থবির। তেলের দর পতনে দেশটির বাজেট অর্থায়ন উচ্চ ঝুঁকির মুখে। দেশটির বাজেট ঘাটতি ছাড়িয়ে গেছে জিডিপি’র ৮ শতাংশ।

    গত বছর সৌদি অর্থমন্ত্রণালয় অবশ্য এ বাজেট ঘাটতি জিডিপি’র ৬.৪ শতাংশ হবে বলে পূর্বাভাস দিয়েছিল। দেশটির প্রতিষ্ঠিত আর্থিক পর্যবেক্ষণ সংস্থা জাদওয়ার সমীক্ষায় বলা হচ্ছে আদতে সৌদি অর্থনীতি রীতিমত এক অনিশ্চয়তায় পড়েছে।

    অথচ অর্থনৈতিক সংস্কারের মধ্যে দিয়ে বিনোদন শিল্পে বিনিয়োগ, বিশে^র সবচেয়ে বড় জালানি কোম্পানি আরামকোর শেয়ার বাজারে ছাড়ার মধ্যে দিয়ে নানামুখি উৎপাদনমুখী অর্থনৈতিক কার্যক্রম শুরু করেছিল সৌদি আরব। করোনাভাইরাস এসব সম্ভাবনাকে যেনো নিমেষে উড়িয়ে দিয়েছে।

    সৌদি আরবের জিডিপি’র হার গত বছর শূন্যদশমিক ৩ শতাংশ থেকে চলতি বছর ব্যাপক তেল উৎপাদন ও রফতানির মাধ্যমে ৬.৩ শতাংশে উন্নীত করার মহাপরিকল্পনা এখন তেলের দর চার বছরে সর্বনিম্ন পতনে মুখ থুবড়ে পড়েছে। এ্যারাবিয়ান বিজনেস

    যোগাযোগ খাতে বিলিয়ন ডলারের মেগা প্রকল্প কাজে আসেনি, অসংখ্য সেবাখাতে আন্তর্জাতিক বিনিয়োগ অচল, তারকা সমৃদ্ধ হোটেল, রেঁস্তোরা খাঁ খাঁ করছে। সৌদি পাবলিক ইনভেস্টমেন্ট ফান্ড, আর্থিক খাতে উন্নয়ন কর্মসূচি, বিলাসবহুল আবাসিক প্রকল্প, বন্ধকী আর্থিক খাত সবই সৌদি অর্থনীতিকে সচল করতে ব্যর্থ হয়েছে। কারণ খাদ্য ও স্বাস্থ্য সেবা ছাড়া করোনাভাইরাসের কারণে সকল খাতের কার্যক্রম বন্ধ হয়ে গেছে সৌদি সরকারের নির্দেশেই।